মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

জিমন্যাস্টটিক্স

 

 

১।   ক্রীড়া বিভাগের নামঃ  জিমন্যাস্টিকস ।

 

২।    জিমন্যাস্টিক্‌স শারীরিক কলা-কৌশল প্রদর্শনের ক্রীড়াবিশেষ; যাতে দৌড়, লাফ, ডিগবাজী,( সমার সল্ট) এবং ভারসাম্য রক্ষা করার বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট থাকে। মেয়েদের ক্ষেত্রে চার ধরনের - ফ্লোর,  আন ইভেন বারস, ব্যালেন্স বীম, এবং ভল্টিং টেবিল সরঞ্জমাদি ব্যবহার করা হয়। অন্যদিকে ছেলেদের ক্ষেত্রে ফ্লোর, প্যারালাল বারস, হাই বার, পমেল হর্স, ভল্টিং টেবিল এবং রোমান রিংস-এ ছয় ধরনের সরঞ্জমাদি ব্যবহার করা হয়ে থাকে।এ ক্রীড়ায় যে প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে থাকেন, তিনি জিমন্যাস্ট নামে সর্বসমক্ষে পরিচিতি লাভ করেন। অলিম্পিক ক্রীড়ায়  এক্রোবেটিক্স এর মধ্যে জিমন্যাস্টিক্‌স অন্যতম প্রধান ক্রীড়া বিষয় হিসেবে বিবেচিত।

৩।    বিকেএসপিতে ১৯৯১ সালে জিমন্যাস্টিক্‌স পুরুষ বিভাগ এবং ১৯৯৬ সালে মহিলা বিভাগ চালু হয়।

 

৪।   বর্তমানে এ ক্রীড়া বিভাগে ০৪  জন কোচ নিয়োজিত আছেন।

 

৫।    ০১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের তথ্য অনুসারে এই ক্রীড়া বিভাগে ১৫ জন ছেলে ও ১৫ জন মেয়ে প্রশিক্ষণার্থী রয়েছে। 

 

৬।   আঞ্চলিক কেন্দ্রে এই ক্রীড়া বিভাগের কোন প্রশিক্ষণার্থী নেই।

 

৭।   প্রশিক্ষণার্থীদের নিয়মিত প্রশিক্ষণের জন্য এই ক্রীড়া বিভাগে ১টি জিমনেসিয়াম ও এই ক্রীড়া ইভেন্ট এর নানা সরঞ্জামাদি রয়েছে।   

 

৮।   এ পর্যন্ত  এই ক্রীড়া বিভাগ থেকে ২২ জন ছেলে ও ১২ জন মেয়ে প্রশিক্ষণার্থী জাতীয় দলের খেলোয়াড় হিসেবে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে।


Share with :

Facebook Facebook